বিষয় ভিত্তিক কোরআন

জাহান্নাম

১)

وَالَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَهُمۡ نَارُ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يُقۡضٰى عَلَيۡهِمۡ فَيَمُوۡتُوۡا وَلَا يُخَفَّفُ عَنۡهُمۡ مِّنۡ عَذَابِهَاؕ كَذٰلِكَ نَجۡزِىۡ كُلَّ كَفُوۡرٍ‌ۚ‏

আর যারা কুফরী করেছে তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের আগুন। না তাদের অস্তিত্ব খতম করে দেয়া হবে যাতে তারা মরে যাবে এবং না তাদের জন্য জাহান্নামের আযাব কিছু কমানো হবে। এভাবে আমি প্রত্যেক কুফরীকারীকে প্রতিফল দিয়ে থাকি। {ফাতেরঃ ৩৬ }বিস্তারিত দেখুন

২)

اِنَّ جَهَنَّمَ كَانَتۡ مِرۡصَادًا ‌ۙ‏ لِّلطّٰغِيۡنَ مَاٰبًاۙ‏ لّٰبِثِيۡنَ فِيۡهَاۤ اَحۡقَابًا‌ۚ لَا يَذُوۡقُوۡنَ فِيۡهَا بَرۡدًا وَّلَا شَرَابًاۙ‏ اِلَّا حَمِيۡمًا وَّغَسَّاقًاۙ‏ جَزَآءً وِّفَاقًاؕ‏ اِنَّهُمۡ كَانُوۡا لَا يَرۡجُوۡنَ حِسَابًاۙ‏ وَّكَذَّبُوۡا بِاٰيٰتِنَا كِذَّابًاؕ

আসলে জাহান্নাম একটি ফাঁদ।বিদ্রোহীদের আবাস। সেখানে তারা যুগের পর যুগ পড়ে থাকবে।সেখানে তারা গরম পানি ও ক্ষতঝরা ছাড়াকোন রকম ঠাণ্ডা এবং পানযোগ্য কোন জিনিসের স্বাদই পাবে না।(তাদের কার্যকলাপের) পূর্ণ প্রতিফল।তারা কোন হিসেব-নিকেশের আশা করতো না।আমার আয়াতগুলোকে তারা একেবারেই মিথ্যা বলে প্রত্যাখ্যান করেছিল।{আন নাবাঃ ২১-২৮}বিস্তারিত দেখুন

৩)

اِنَّهٗ مَنۡ يَّاۡتِ رَبَّهٗ مُجۡرِمًا فَاِنَّ لَهٗ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يَمُوۡتُ فِيۡهَا وَلَا يَحۡيٰى‏

--প্রকৃতপক্ষেযে ব্যক্তি অপরাধী হয়ে নিজের রবের সামনে হাযির হবে তার জন্য আছে জাহান্নাম, যার মধ্যে সে না জীবিত থাকবে, না মরবে। {ত্বাহাঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন

৪)

اِنَّ الَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَوۡ اَنَّ لَهُمۡ مَّا فِىۡ الۡاَرۡضِ جَمِيۡعًا وَّمِثۡلَهٗ مَعَهٗ لِيَفۡتَدُوۡا بِهٖ مِنۡ عَذَابِ يَوۡمِ الۡقِيٰمَةِ مَا تُقُبِّلَ مِنۡهُمۡ‌ۚ وَلَهُمۡ عَذَابٌ اَلِيۡمٌ يُرِيۡدُوۡنَ اَنۡ يَّخۡرُجُوۡا مِنَ النَّارِ وَمَا هُمۡ بِخٰرِجِيۡنَ مِنۡهَا‌ وَلَهُمۡ عَذَابٌ مُّقِيۡمٌ

ভালভাবে জেনে নাও, যারা কুফরীর নীতি অবলম্বন করেছে সারা দুনিয়ার ধন-দৌলত যদি তাদের অধিকারে থাকে এবং এর সাথে আরো সমপরিমাণও যুক্ত হয়। আর তারা যদি কিয়ামতের দিন শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য সেগুলো মুক্তিপণ হিসেবে দিতে চায়, তাহলেও তাদের কাছ থেকে তা গৃহীত হবে না। তারা যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি ভোগ করবেই।তারা জাহান্নামের আগুন থেকে বের হয়ে আসতে চাইবে। কিন্তু তা তারা পারবে না। তাদেরকে স্থায়ী শাস্তি দেয়া হবে। {আল মায়েদাহঃ ৩৬-৩৭}বিস্তারিত দেখুন

৫)

اِنَّ الۡمُجۡرِمِيۡنَ فِىۡ عَذَابِ جَهَنَّمَ خٰلِدُوۡنَ‌ ۖ‌ۚ

আর অপরাধীরা তারা তো চিরদিন জাহান্নামের আযাব ভোগ করবে। {আয্ যুখরুফঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন

৬)

وَالَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَهُمۡ نَارُ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يُقۡضٰى عَلَيۡهِمۡ فَيَمُوۡتُوۡا وَلَا يُخَفَّفُ عَنۡهُمۡ مِّنۡ عَذَابِهَاؕ كَذٰلِكَ نَجۡزِىۡ كُلَّ كَفُوۡرٍ‌ۚ‏

আর যারা কুফরী করেছে তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের আগুন। না তাদের অস্তিত্ব খতম করে দেয়া হবে যাতে তারা মরে যাবে এবং না তাদের জন্য জাহান্নামের আযাব কিছু কমানো হবে। এভাবে আমি প্রত্যেক কুফরীকারীকে প্রতিফল দিয়ে থাকি। {ফাতেরঃ ৩৬ }বিস্তারিত দেখুন

৭)

اِنَّ جَهَنَّمَ كَانَتۡ مِرۡصَادًا ‌ۙ‏ لِّلطّٰغِيۡنَ مَاٰبًاۙ‏ لّٰبِثِيۡنَ فِيۡهَاۤ اَحۡقَابًا‌ۚ لَا يَذُوۡقُوۡنَ فِيۡهَا بَرۡدًا وَّلَا شَرَابًاۙ‏ اِلَّا حَمِيۡمًا وَّغَسَّاقًاۙ‏ جَزَآءً وِّفَاقًاؕ‏ اِنَّهُمۡ كَانُوۡا لَا يَرۡجُوۡنَ حِسَابًاۙ‏ وَّكَذَّبُوۡا بِاٰيٰتِنَا كِذَّابًاؕ

আসলে জাহান্নাম একটি ফাঁদ।বিদ্রোহীদের আবাস। সেখানে তারা যুগের পর যুগ পড়ে থাকবে।সেখানে তারা গরম পানি ও ক্ষতঝরা ছাড়াকোন রকম ঠাণ্ডা এবং পানযোগ্য কোন জিনিসের স্বাদই পাবে না।(তাদের কার্যকলাপের) পূর্ণ প্রতিফল।তারা কোন হিসেব-নিকেশের আশা করতো না।আমার আয়াতগুলোকে তারা একেবারেই মিথ্যা বলে প্রত্যাখ্যান করেছিল।{আন নাবাঃ ২১-২৮}বিস্তারিত দেখুন

৮)

اِنَّهٗ مَنۡ يَّاۡتِ رَبَّهٗ مُجۡرِمًا فَاِنَّ لَهٗ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يَمُوۡتُ فِيۡهَا وَلَا يَحۡيٰى‏

--প্রকৃতপক্ষেযে ব্যক্তি অপরাধী হয়ে নিজের রবের সামনে হাযির হবে তার জন্য আছে জাহান্নাম, যার মধ্যে সে না জীবিত থাকবে, না মরবে। {ত্বাহাঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন

৯)

اِنَّ الَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَوۡ اَنَّ لَهُمۡ مَّا فِىۡ الۡاَرۡضِ جَمِيۡعًا وَّمِثۡلَهٗ مَعَهٗ لِيَفۡتَدُوۡا بِهٖ مِنۡ عَذَابِ يَوۡمِ الۡقِيٰمَةِ مَا تُقُبِّلَ مِنۡهُمۡ‌ۚ وَلَهُمۡ عَذَابٌ اَلِيۡمٌ يُرِيۡدُوۡنَ اَنۡ يَّخۡرُجُوۡا مِنَ النَّارِ وَمَا هُمۡ بِخٰرِجِيۡنَ مِنۡهَا‌ وَلَهُمۡ عَذَابٌ مُّقِيۡمٌ

ভালভাবে জেনে নাও, যারা কুফরীর নীতি অবলম্বন করেছে সারা দুনিয়ার ধন-দৌলত যদি তাদের অধিকারে থাকে এবং এর সাথে আরো সমপরিমাণও যুক্ত হয়। আর তারা যদি কিয়ামতের দিন শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য সেগুলো মুক্তিপণ হিসেবে দিতে চায়, তাহলেও তাদের কাছ থেকে তা গৃহীত হবে না। তারা যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি ভোগ করবেই।তারা জাহান্নামের আগুন থেকে বের হয়ে আসতে চাইবে। কিন্তু তা তারা পারবে না। তাদেরকে স্থায়ী শাস্তি দেয়া হবে। {আল মায়েদাহঃ ৩৬-৩৭}বিস্তারিত দেখুন

১০)

اِنَّ الۡمُجۡرِمِيۡنَ فِىۡ عَذَابِ جَهَنَّمَ خٰلِدُوۡنَ‌ ۖ‌ۚ

আর অপরাধীরা তারা তো চিরদিন জাহান্নামের আযাব ভোগ করবে। {আয্ যুখরুফঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন

১১)

وَالَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَهُمۡ نَارُ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يُقۡضٰى عَلَيۡهِمۡ فَيَمُوۡتُوۡا وَلَا يُخَفَّفُ عَنۡهُمۡ مِّنۡ عَذَابِهَاؕ كَذٰلِكَ نَجۡزِىۡ كُلَّ كَفُوۡرٍ‌ۚ‏

আর যারা কুফরী করেছে তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের আগুন। না তাদের অস্তিত্ব খতম করে দেয়া হবে যাতে তারা মরে যাবে এবং না তাদের জন্য জাহান্নামের আযাব কিছু কমানো হবে। এভাবে আমি প্রত্যেক কুফরীকারীকে প্রতিফল দিয়ে থাকি। {ফাতেরঃ ৩৬ }বিস্তারিত দেখুন

১২)

اِنَّ جَهَنَّمَ كَانَتۡ مِرۡصَادًا ‌ۙ‏ لِّلطّٰغِيۡنَ مَاٰبًاۙ‏ لّٰبِثِيۡنَ فِيۡهَاۤ اَحۡقَابًا‌ۚ لَا يَذُوۡقُوۡنَ فِيۡهَا بَرۡدًا وَّلَا شَرَابًاۙ‏ اِلَّا حَمِيۡمًا وَّغَسَّاقًاۙ‏ جَزَآءً وِّفَاقًاؕ‏ اِنَّهُمۡ كَانُوۡا لَا يَرۡجُوۡنَ حِسَابًاۙ‏ وَّكَذَّبُوۡا بِاٰيٰتِنَا كِذَّابًاؕ

আসলে জাহান্নাম একটি ফাঁদ।বিদ্রোহীদের আবাস। সেখানে তারা যুগের পর যুগ পড়ে থাকবে।সেখানে তারা গরম পানি ও ক্ষতঝরা ছাড়াকোন রকম ঠাণ্ডা এবং পানযোগ্য কোন জিনিসের স্বাদই পাবে না।(তাদের কার্যকলাপের) পূর্ণ প্রতিফল।তারা কোন হিসেব-নিকেশের আশা করতো না।আমার আয়াতগুলোকে তারা একেবারেই মিথ্যা বলে প্রত্যাখ্যান করেছিল।{আন নাবাঃ ২১-২৮}বিস্তারিত দেখুন

১৩)

اِنَّهٗ مَنۡ يَّاۡتِ رَبَّهٗ مُجۡرِمًا فَاِنَّ لَهٗ جَهَنَّمَ‌ۚ لَا يَمُوۡتُ فِيۡهَا وَلَا يَحۡيٰى‏

--প্রকৃতপক্ষেযে ব্যক্তি অপরাধী হয়ে নিজের রবের সামনে হাযির হবে তার জন্য আছে জাহান্নাম, যার মধ্যে সে না জীবিত থাকবে, না মরবে। {ত্বাহাঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন

১৪)

اِنَّ الَّذِيۡنَ كَفَرُوۡا لَوۡ اَنَّ لَهُمۡ مَّا فِىۡ الۡاَرۡضِ جَمِيۡعًا وَّمِثۡلَهٗ مَعَهٗ لِيَفۡتَدُوۡا بِهٖ مِنۡ عَذَابِ يَوۡمِ الۡقِيٰمَةِ مَا تُقُبِّلَ مِنۡهُمۡ‌ۚ وَلَهُمۡ عَذَابٌ اَلِيۡمٌ يُرِيۡدُوۡنَ اَنۡ يَّخۡرُجُوۡا مِنَ النَّارِ وَمَا هُمۡ بِخٰرِجِيۡنَ مِنۡهَا‌ وَلَهُمۡ عَذَابٌ مُّقِيۡمٌ

ভালভাবে জেনে নাও, যারা কুফরীর নীতি অবলম্বন করেছে সারা দুনিয়ার ধন-দৌলত যদি তাদের অধিকারে থাকে এবং এর সাথে আরো সমপরিমাণও যুক্ত হয়। আর তারা যদি কিয়ামতের দিন শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য সেগুলো মুক্তিপণ হিসেবে দিতে চায়, তাহলেও তাদের কাছ থেকে তা গৃহীত হবে না। তারা যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি ভোগ করবেই।তারা জাহান্নামের আগুন থেকে বের হয়ে আসতে চাইবে। কিন্তু তা তারা পারবে না। তাদেরকে স্থায়ী শাস্তি দেয়া হবে। {আল মায়েদাহঃ ৩৬-৩৭}বিস্তারিত দেখুন

১৫)

اِنَّ الۡمُجۡرِمِيۡنَ فِىۡ عَذَابِ جَهَنَّمَ خٰلِدُوۡنَ‌ ۖ‌ۚ

আর অপরাধীরা তারা তো চিরদিন জাহান্নামের আযাব ভোগ করবে। {আয্ যুখরুফঃ ৭৪ }বিস্তারিত দেখুন